26 C
Kolkata
26 C
Kolkata
বুধবার, সেপ্টেম্বর 29, 2021

জোড়াবাগান পুলিশ ট্রাফিক গার্ডে অশরীরী দের দৌরাত্ম্য , ডাক পড়ল ভূত – সন্ধানীদের

কলকাতা মিডিয়া ওয়েব ডেস্কঃ

থানায় হল ভূতের হানা । এটা অবশ্য ঠিক থানা বা ফাঁড়ি নয় , পুলিশের ট্রাফিক গার্ডের ঘটনা ।এর ভিতরে পুলিশ ব্যারাকে ডিউটি করে ক্লান্ত পুলিশকুলের ঘুম ছুটে গিয়েছে ভূতে উপদ্রবে । শেষ পর্যন্ত সাহসী পুলিশদের ওঝার শরনাপন্ন হতে হয়েছে । ওঝা মানে , ভূতসন্ধানী গোয়েন্দা বাহিনী । ভূতের বাড়িতে পর পর দু রাত কাটিয়েও যাঁরা ভৌতিক কিছু পাননি ।

ঘটনাস্থল হল , ১০২ শোভাবাজার স্ট্রিটের জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ড । আশেপাশের সাবেক কলকাতার নানা আটপৌরে বাড়ির মাঝে মোটা মোটা থাম শোভিত যে বাড়ি নজর কাড়ে তার আভিজাত্যে । নকশাল আমলেই ভাগ্যকুলের রায় বাড়ির শরীকদের থেকে যে বাড়ি ভাড়া নিয়েছেন লালবাজারের কর্তারা । তবে ভূতের গল্প আগে শোনা যায় নি ।পুলিশ গার্ডের বাড়িওয়ালা কৃষ্ণনাথ রায় থাকেন লি রোডে । তাঁর কথায় , “ এবাড়ি বাবার ঠাকুরদা জানকীনাথ রায়ের আমলের । নকশাল আমলে উত্তর কলকাতায় থাকা যাচ্ছিল না বলেই আমরা ভাড়া দিয়ে পালাই । তখন আমার তিন – চার বছর বয়েস । কআকারা এখনও বেঁচে । বাড়িটায় ভূতের উপদ্রব তো আগে শুনিনি” ।

অধুনা রিজেন্ট পার্ক ট্রাফিক গার্ডে বদলি হওয়া এক সার্জেন্টের চোখেমুখে আতঙ্কের ছাপ ।তিনি বলেন ,” এক রাত ই আমি জোড়াবাগান গার্ডের ব্যারাকে ছিলাম । মাঝরাতে গালে সপাটে চড় খেয়ে ঘুম ভাঙল ।অথচ কেউ কোথাও নেই ।ঘাড় মটকায় নি এই রক্ষে” ।আর একজন পুলিশ আধিকারিক ও রাতভর বিটকেল সব আওয়াজে কুঁকড়ে জেগে বসে থাকার কথা শূনিয়েছেন । কলকাতার পুলিশ কমিশনার সৌমেন মিত্র বলেন , “বিষয়টা অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার তন্ময় রায়চৌধুরী দেখছেন” ।তন্ময়বাবুর সঙ্গে যোগাযোগ করলে অবশ্য সাড়া মেলেনি ।তবে পুলিশ সূত্রে খবর , গত জুনে ভূত শিকারীদের নিয়ে তন্ময় বাবুর ঘরে মিটিং বসেছে খোদ লালবাজারে ।

জোড়াবাগানের এক ভূতসন্ধানী গোয়েন্দা দম্পতি জানিয়েছেন , পুলিশের কথামতো নানা কিসিমের যন্ত্রপাতি নিয়ে তাঁরা ভূতবাড়িতে রাত কাটান ।তবে এই কাজের জন্য তাঁরা কোন পারিশ্রমিক নেন নি । সেই দম্পতি জানিয়েছেন , “ভূত থাকা না থাকাটা আমরা খোলা মনে দেখি ।ইলেকট্রোম্যাগনেটিক ফিল্ড জরিপ করার যন্ত্র দিয়ে অনেক সময়ে অশরীরী উপস্থিতি ধরা পড়তেও পারে ।তাই ওটি সঙ্গে ছিল । যা মনে হল , ওই বাড়ির ছাদে মোবাইল টাওয়ারের বিকিরণে পুলিশের লোকেরা ভুল বুঝতেও পারেন । ব্যারাকের ঠিক উপরেই টাওয়ার কিনা । ভূত বোতলবন্দি হয় নি” ।রহস্যজনক কিছু গোয়েন্দারা দেখেন নি । তবে পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন,” রেডিয়েশন , ফেডিয়েশন সব বুঝলাম ।ঘুমের ঘোরে ছায়ামূর্তিও না হয় মনের ভুল ।তা বলে গালে চড় ! এ আবার হয় নাকি” !!

- Advertisement -spot_img

Latest news

- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -spot_img

Related news

- Advertisement -spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: